সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার ও ফেক আইডির মূলহোতা সানাহউল্লাহ বেপারী

দৈনিক মুক্ত বাংলাদেশ
Thursday, May 6, 2021 | May 06, 2021 WIB Last Updated 2021-05-07T06:49:28Z


সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা:

নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ উপজেলার বৈদ্যেরবাজার ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রউফ ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অপপ্রচারকারী রাকিবুল হাসান শান্ত (১৮) নামে এক যুবক জনতার হাতে আটক হয়েছেন।


বৃহস্পতিবার (৬ মে) সন্ধ্যায় বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন পরিষদে জনতার হাতে আটক রাকিবুল হাসান শান্ত নিজেকে বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের মামরকপুর গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে সানাহউল্লাহ বেপারীর ভাগিনা হিসেবে পরিচয় দেন৷ শান্ত আড়াইহাজার উপজেলার খাককান্দা গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে।


এর আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে "বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন পরিষদ" নামে একটি ফেক আইডি ব্যবহার করে উপজেলার বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. আব্দুর রউফ ও তার ছেলের বিরুদ্ধে বেশ কিছুদিন যাবত মিথ্যা ও আপত্তিকর অপপ্রচার চালানোয় শান্তকে আটক করেছে স্থানীয় লোকজন। 


পরে তাকে বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন পরিষদের এনে তার স্বজনদের সামনে অপপ্রচার চালানোর বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে শান্ত নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন, তার মোবাইল ও মোবাইল নাম্বার ব্যবহার করে তার মামা (সানাহউল্লাহ বেপারী) “বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন পরিষদ” নামে একটি ফেক আইডি খুলে, ঐ ফেক আইডির মাধ্যমে চেয়ারম্যান ডা. আব্দুর রউফ ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে আপত্তিকর অপপ্রচার চালাচ্ছে। শান্ত আরো জানান, গত ৩ এপ্রিল সোনারগাঁওয়ে হেফাজত তান্ডব ও উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় ভাংচুর মামলার এজাহার ভুক্ত আসামি সানাউল্লাহ গ্রেফতারের ভয়ে তাদের বাড়িতে পাঁচদিন আত্মগোপন করে থাকে। পরে সেখান থেকে অন্যত্র চলে যায়।


সানাহউল্লাহ বেপারীর বাবা তোফাজ্জল হোসেন জানান, এলাকার তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে কিছুদিন আগে একটি বিচার শালিস হয়। বিষয়টি বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন ডা. আব্দুর রউফ স্থানীয় পঞ্চায়েত কমিটি ও এলাকার সম্মানিত ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে সর্বসম্মতিক্রমে সঠিক ও গ্রহণযোগ্য মীমাংসা দেন। তখন সানাউল্লাহ বেপারী সহ তার পরিবার সে রায়ে সন্তুষ্ট প্রকাশ করেন। কিন্তু সালিশ মীমাংসার একদিন পর থেকেই সে ফেসবুকে বিভিন্ন নামে ফেক আইডি খুলে চেয়ারম্যান ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। আমি আমার ছেলের কান্ডজ্ঞানহীন এসব কাজে বিব্রত৷ 

তিনি আরো বলেন, আমার ছেলে আমার কথা শুনে না। সে এখন আমার অবাধ্য সন্তান। সমাজের শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার্থে চেয়ারম্যান ডা. আব্দুর রউফ ও পঞ্চায়েত কমিটি তার ছেলের বিরুদ্ধে যে সিদ্ধান্ত নিবেন সে সিদ্ধান্তকে তিনি সম্মান জানাবেন।


এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. আব্দুর রউফ বলেন, সমাজে আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ফেসবুকের মাধ্যমে মানবাধিকার যে অপপ্রচার চালিয়ে তা অত্যন্ত ঘৃণিত কাজ। এলাকার কিছু কুচক্রী মহলের লোকজন আমার সুনাম ক্ষুণ্ন করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এবং মিথ্যে অপপ্রচারকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

অন্যদিকে সানাহউল্লাহ বেপারীর বাবা ও ভাগিনার অভিযোগ সম্পর্কে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে কয়েকবার ফোনে কল হলেও তিনি ফোন ধরেননি৷

Comments
comments that appear entirely the responsibility of commentators as regulated by the ITE Law
  • সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার ও ফেক আইডির মূলহোতা সানাহউল্লাহ বেপারী

জনপ্রিয় সংবাদ

Advertisement